ঠাকুরগাঁওয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসেও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত : হুমকিতে বাঙালি চেতনা

Share This
Tags

newsbdn

এস. এম. মনিরুজ্জামান মিলন, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ আজ ১৪ই ডিসেম্বর, শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। পরাজয় সুনিশ্চিত জেনে ১৯৭১ এর এই দিনে একে একে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের হত্যা করে বাঙালি জাতিকে মেধাশূন্য করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছিল পাকহানাদার বাহিনী। এরপর থেকেই শহীদদের স্মরণে দিনটি শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

শহীদদের স্মরণে এইদিনে বুকে শোকের প্রতীক- কালো ব্যাজ ধারণ করে মিছিল-মিটিং, তাদের কবর, স্মৃতিবিজড়িত স্মম্ভসমূহে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন করে থাকেন। বাঙালি জাতিসত্তার ইতিহাসে দিনটি অনেক গুরুত্ব বহন করায় শহীদদের স্মরণে মিছিল-মিটিং, শ্রদ্ধা নিবেদনসহ বিভিন্ন কর্মসূচির স্বার্থে দিনটিকে সরকারি ছুটির আওতাভুক্ত করার জোর দাবি জানিয়ে আসছে মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনগুলো।

পূর্বেকার বছরগুলোতে কর্মসূচিতে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের সরব উপস্থিতি লক্ষ্য করা গিয়েছিল। কিন্তু এবার শহীদদের স্মরণে আয়োজিত কর্মসূচিতে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল একেবারেই শূন্যের কোঠায়।

সরেজমিনে বেশকিছু সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গমন করি। ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ’ ২০১৬ তে দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খেতাব অর্জনকারী ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে আজ বার্ষিক পরীক্ষার বিভিন্ন বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। একইভাবে ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়, কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজ, আমানতুল্লাহ ইসলামী স্কুল এন্ড কলেজ, আরকে স্টেট স্কুল, সালন্দর হাফেজিয়া আলীয়া মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

বাঙালি জাতীয়তাবোধে আঘাত হানার এই শোকের দিনে পরীক্ষা নেওয়ার কারণ জানতে চাইলে এসব প্রতিষ্ঠানের প্রধানেরা জানান, পরীক্ষা ৩ দিন এগিয়ে ২৮ নভেম্বর শুরু হলেও পূর্বেকার তুলনায় এবছর পরীক্ষার বিষয় অনেকগুলো বেশি। ছুটির সংখ্যাও বেশি হওয়ায় আগেভাগে পরীক্ষা শুরু করেও তেমন সুফল আসেনি। আমরাও চাই শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের শ্রদ্ধা জানাতে। এছাড়া ১৬ই ডিসেম্বরের পূর্বে বার্ষিক পরীক্ষা শেষ করারও একটি অঘোষিত বাধ্যবাধকতা রয়েই গেছে। এছাড়া মহান বিজয় দিবস প্যারেডের মহড়ার জন্য জেলা প্রশাসন একটি দিন চেয়েছেন। সঙ্গত কারণে সার্বিক দিক বিবেচনায় আজকের দিনে পরীক্ষা নেওয়ার মতো সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে।

আপনার মন্তব্য লিখুন