রংপুরে মামাকে পিটিয়ে হত্যা : ভাগ্নেসহ ৭ জনের যাবজ্জীবন

Share This
Tags

RANGPUR-MURDER-MAMLA-JUDGEMENT

রংপুর: রংপুরের মিঠাপুকুরে মামাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে ভাগ্নেসহ সাতজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দিয়েছে আদালত।
মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-২ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান এ রায় দেন।  দন্ডাপ্রাপ্তরা হলেন, মিঠাপুকরের মিলনপুর ইউনিয়নের তরফ বাহাদী গ্রামের লাবুল মিয়া, আব্দুল আজিজ, নেহাল উদ্দিন, আরজিনা বেগম, ওমেলা বেগম, মশিউর রহমান ও নুর ইসলাম। রায় ঘোষণার সময় অভিযুক্ত সাত আসামীর মধ্যে আরজিনা ও মশিউর অনুপস্থিত ছিলেন।
মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, লাবলু ও তার স্ত্রী আরজিনা বেগমের মধ্যে পারিবারিক বিষয়াদি নিয়ে ঝগড়া-বিবাদ চলছিল। এমন খবর পেয়ে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার কুশকাদহ মন্ডলপাড়া গ্রামের কৃষক বেলাল হোসেন তাদের পারিবারিক সমস্যা মেটাতে ২০০৬ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর তার ভাগ্নে লাবলু মিয়ার বাড়ি মিঠাপুকুরে যান।
ওইদিন রাতে মামা বেলাল হোসেন ভাগ্নে বৌ আরজিনাকে একা পেয়ে যৌন হয়রানী করেন বলে অভিযোগ উঠলে লাবলুসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা মিলে বেলালকে কয়েক দফায় গাছের সাথে বেঁধে বেধড়ক পিটুনী দেয়। এতে বেলালের অবস্থা বেগতিক হলে ৩০ সেপ্টম্বর তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থেকে ১ অক্টোবর মারা যান বেলাল।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে আলমগীর হোসেন মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তার বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ এনে ২ অক্টোবর মিঠাপুকুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
দীর্ঘদিন মামলাটি আদালতে বিচারাধীন থাকার পর মঙ্গলবার এর রায় ঘোষণা করা হয়।
রাস্ট্র পক্ষে মামলা মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) ফারুক মো. রেয়াজুল করিম এবং আসামী পক্ষে ছিলেন অ্যাড. আব্দুর রশীদ চৌধুরী।

আপনার মন্তব্য লিখুন