শ্রমবাজার : জট খুলছে কাতারের, আগ্রহী জাপানও!

Share This
Tags

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট:

http://newsbdn.com

শ্রমশক্তি রপ্তানিতে বাংলাদেশের নতুন সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হতে যাচ্ছে। জটিলতা কাটিয়ে আবারো খুলতে যাচ্ছে কাতারের শ্রমবাজার। জাপান আগ্রহ দেখাচ্ছে পেশাজীবী নিয়োগে। আলোচনা হয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের আরো কয়েকটি বাজারে বেশি কর্মী নিয়োগের বিষয়ে। সব মিলিয়ে চলতি বছর ১০ লাখ কর্মী বিদেশ পাঠানোর লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে সরকার।

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, সংস্থার কর্মকর্তা এবং অর্থনীতিবিদরা বলছেন, মধ্যপ্রাচ্যই মূলত বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রম বাজার। এমনকি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পাঠানো রেমিটেন্সের মধ্যে মধ্যপ্রাচ্য থেকেই বেশি রেমিটেন্স আসে। শ্রমিকদের পাঠানো এই রেমিটেন্স দেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তিতে পরিণত হয়েছে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি  বলেন, ‘বাংলাদেশের জনশক্তির চাহিদা পৃথিবীর প্রায় সবদেশেই রয়েছে। কিন্তু কিছু অসাধু দালালদের কারণে কিছু দেশের কাছে আমাদের ভাবমুর্তি নষ্ট হচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিক পলিসির কারণেও আমাদের জনশক্তি রপ্তানির ক্ষেত্রে কিছু কিছু দেশে সমস্যা হচ্ছিল।

তিনি বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন দেশের সঙ্গে এসব বিষয় নিয়ে কয়েক দফা বৈঠক করেছি। অধিকাংশ দেশের কাছ থেকেই আমরা ভাল সাড়া পেয়েছি। এছাড়া নতুন নতুন শ্রমবাজার সৃষ্টি করার জন্যও কাজ চলছে। আমরা আশা করছি, এ বছরে ১০ লাখ কর্মী বিদেশের বিভিন্ন শ্রমবাজারে পাঠানো সম্ভব হবে।

জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) তথ্য মতে, সৌদি আরব এবং মালয়েশিয়া বাংলাদেশের অন্যতম শ্রমবাজার। এই দুটি দেশের সাথেই সরকারের আলোচনা ইতিবাচক ভাবে এগিয়েছে। এর সঙ্গে বিনা খরচে পারস্য উপসাগরের তেলসমৃদ্ধ দেশ কাতারে পুরুষকর্মী পাঠানোর বিষয়ে আলোচনাও অনেকদূর এগিয়েছে। কাতার ফাউন্ডেশন এ প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন করবে। ফাউন্ডেশনের সঙ্গেও বাংলাদেশ সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বৈঠক হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন