প্রতি ইলিশেই হাজার টাকা মুনাফা!

Share This
Tags

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট:

http://newsbdn.com

এমনিতেই আমদানি করা ইলিশে সয়লাব বাংলাদেশের বাজার। তারওপর প্রজননের প্রয়োজনে বাংলাদেশের মোহনায় ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ থাকায় বার্মিজ ইলিশের অবস্থা এখন পোয়াবারো। কেজি প্রতি হাজার টাকা বেড়ে দু’শ’ টাকার ইলিশ বারোশ’ টাকা কেজি দরে বিকোচ্ছে দেশ জুড়ে। পহেলা বৈশাখের প্রাক্কালে আরো বেড়ে গেছে মাছের রাজা ইলিশের দাম।

রাজধানীর কাওরানবাজারে গিয়ে দেখা যায়, আমদানি করা বার্মিজ ইলিশেই সয়লাব পুরো কাওরানবাজার। এক কেজির একটু বেশি ওজনের ইলিশ প্রতি হালি বিক্রি হচ্ছে ৭ হাজার ৫০০ টাকায়। সেই হিসেবে কেজি প্রতি ইলিশের দাম ১৮৭৫টাকা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চলতি এপ্রিলের ১ থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত ঢাকা কাস্টমস হাউসে ৩৭টি ইলিশের চালান এসেছে। যার মধ্যে এসসি ট্রেডার্স ১৭টি, এওয়ান করপোরেশন ১০টি, ব্রাইট কোল্ড স্টোরেজ ৭টি, এশিয়া মেরিন প্রোডাক্ট ৩টি চালান এনেছে।

৩৭টি চালানে আনা ইলিশের ওজন ৫২ হাজার ৯শ’ ৪০ কেজি। এছাড়া আমদানিকারকদের ঘোষণা অনুযায়ী এগুলোর মূল্য ৫১ লাখ ৮৩ হাজার ৮৭৬ টাকা। যার অর্থ হলো মিয়ানমার থেকে আমদানি করা প্রতি কেজি ইলিশের দাম মাত্র ৯৮ টাকা। আর ৪১ লাখ ২৪ হাজার ৫২১ টাকা শুল্ককর পরিশোধ হয়ে প্রতি কেজি ইলিশের দাম দাঁড়ায় মাত্র ১৭৬ টাকা।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে চলতি মাসের ১ থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত ২৫টি ইলিশের চালান এসেছে। যেখানে ব্রাইট কোল্ড স্টোরেজ ৩টি, মেজোর এগ্রো প্রোডাক্ট ৩টি, মামুন ট্রেডার্স ৫টি, রূপা এন্টার প্রাইজ ১টি, তাইহান ফুডস ২টি, রূপালী ট্রেডিং লিঃ ৩টি চালান এনেছে। বাকি ৮টি কোম্পানি ১টি করে ইলিশের চালান এনেছে।

২৫টি চালানে আনা ইলিশের ওজন ৭ লাখ ৭৭ হাজার ১৭০ কেজি। আমদানিকারকদের ঘোষণা অনুযায়ী এগুলোর দাম ৮ কোটি ২৪ লাখ ৯৯ হাজার ৬৫৮টাকা। ফলে বিদেশ থেকে আনা প্রতি কেজি ইলিশের দাম দাঁড়ায় ১০৭ টাকা। আর শুল্ককরাদি ৪ কোটি ৪৩ লাখ ৪৪ হাজার ৭৯৯ টাকা পরিশোধ করে প্রতি কেজি ইলিশের দাম দাঁড়ায় ১৬৯ টাকা।

এছাড়া টেকনাফ দিয়ে চলতি মাসের ১ থেকে ৯ তারিখ পর্যস্ত এসেছে ৯টি ইলিশের চালান। যার মধ্যে জাফর এন্টার প্রাইজ ৪টি চালান এনেছে। যেগুলোর ওজন ৮ হাজার ৭শ’ কেজি।

আর ৯টি চালানে আনা ইলিশের ওজন ৫১ হাজার ৮শ’ কেজি। আমদানিকারকদের ঘোষণা অনুযায়ী এগুলোর  দাম ৫১ লাখ ৩৪ হাজার ৮১ টাকা। তার মানে প্রতি কেজি ইলিশের দাম পড়ছে ১শ’ টাকা। শুল্ককর ৪৫ লাখ ৯১ হাজার ২৯ টাকা যোগ হয়ে দাম দাঁড়াচ্ছে ১৮৮ টাকা।
এনবিআর সূত্রমতে, বিদেশ থেকে ইলিশ আমদানির ক্ষেত্রে ৮৯.৪২ শতাংশ শুল্ককরাদি পরিশোধ করতে হয়।

ফলে বিদেশ থেকে ইলিশ আমদানির পর শুল্ককরাদি পরিশোধ করার পর ইলিশের দাম কেজি প্রতি ২শ’ টাকার নিচেই থাকছে। এর সঙ্গে যোগ হচ্ছে পরিবহন ব্যয়। কিন্তু রাজধানীসহ দেশের বাজারে কেজি প্রতি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে হাজার/বারোশ’ টাকারও বেশি দরে। ফলে এক ইলিশেই হাজার টাকা লাভ করছেন ব্যবসায়ীরা।

আপনার মন্তব্য লিখুন