হজে অব্যবস্থাপনার জন্য সরকার দায়ী : হাব

Share This
Tags

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট:

http://newsbdn.com

এ বছর হজ কার্যক্রমে চরম অব্যবস্থাপনার জন্য সরকারকে দায়ী করছে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিশেয়ন অব বাংলাদেশ (হাব)। রাজধানীর আশকোনায় এক সংবাদ সম্মেলনে হাবের মহাসচিব শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, চলতি বছর হজ অব্যবস্থাপনার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়সহ সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো দায়ী।

তিনি বলেন, হজ ফ্লাইট বাতিল হওয়ার জন্য অনেকেই হাবকে দায়ী করেছিলেন। কিন্তু অব্যবস্থাপনার ছয়টি কারণ আছে। কারণগুলো হলো- ধর্ম মন্ত্রণালয় কর্তৃক জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে মোয়াল্লেম ফি প্রদান করা, সৌদি আরব সরকার কর্তৃক আকস্মিকভাবে ২ হাজার সৌদি রিয়াল চার্জ ধার্য করা, শুরু থেকেই ই-ভিসা প্রিন্টিংয়ের জটিলতা, ৯১ হজ এজেন্সির সময়মতো মোয়াল্লেম না পাওয়া, মদিনায় আট দিনের থাকার বিধান মানার কারণে ফ্লাইটের তারিখ পছন্দের বাধ্যবাধকতা এবং শুরুর দিকে বিমান ভাড়া ৩ হাজার টাকা বৃদ্ধি করা।

হাব মহাসচিব বলেন, প্রতি বছর মোয়াল্লেম ফি ধর্ম মন্ত্রণালয় গ্রহণ করে সৌদি আরবে পাঠায়। কিন্তু এ বছর এজেন্সিকে আইবিএনের মাধ্যমে পাঠাতে বলা হয়। বাড়ি ভাড়ার শর্ত হিসেবে আইবিএন অ্যাকাউন্ট করা এবং মোয়াল্লেম ফি স্থানান্তর করার শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়। কিন্তু মন্ত্রণালয় এজেন্সির কাছ থেকে ২৪ ফেব্রুয়ারি মোয়াল্লেম ফি নেয় এবং সৌদিতে ৩০ জুনের মধ্যে বাড়ি ভাড়া করতে বলে। ৩০ জুনের মধ্যে বাড়ি ভাড়া করতে হলে ১৫ মের মধ্যে মোয়াল্লেম ফির টাকা ফেরত দিতে হতো। কিন্তু ধর্ম মন্ত্রণালয় জুলাই মাসে এ টাকা ফেরত দেয়। এতে বাড়ি ভাড়ায় দেরি হয়।

তিনি আরো বলেন, বাড়ি ভাড়ার প্রতিকূলতা কাটিয়ে এজেন্সিগুলো যখন হজযাত্রী পাঠাতে ভিসা সংগ্রহে ব্যস্ত সে সময় ২০১৫ ও ২০১৬ সালের হজযাত্রীদের জন্য ২ হাজার রিয়াল অতিরিক্ত চার্জ আরোপ করা হয়। তা ছাড়া ই-ভিসা প্রিন্টিং জটিলতা এবং ৯১টি এজেন্সি সময়মতো মোয়াল্লেম ফি না পাওয়ায় আকস্মিকভাবে বিমানের ফ্লাইটে যাত্রী সংকট দেখা দেয়। এতে হজ ফ্লাইট বাতিল হয়।

হজ অব্যবস্থাপনার জন্য বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়কে দায়ী করে হাব মহাসচিব বলেন, হজ এজেন্সির দায়িত্ব হজযাত্রীদের সৌদি আরবে নিয়ে যাওয়া। আগের ৪২-৪৫ দিনের প্যাকেজে আবাসন ও খাবারের ব্যবস্থাসহ সব সুবিধা নিশ্চিত করা। হজ নীতিমালার কোথাও এজেন্সিদের বলা হয়নি যে, এজেন্সিগুলো তাদের হজযাত্রীদের প্রথম দিকে, মাঝের দিকে বা শেষের দিকে নিয়ে যেতে হবে। হজযাত্রীদের আসা-যাওয়ার বিষয়ে বাধ্যবাধকতা রয়েছে সৌদি আরবের আইন অনুসারে। তাই বিমান মন্ত্রণালয়ের উচিত সৌদি আরবের বাধ্যবাধকতা আমলে নিয়ে হজ ফ্লাইটের শিডিউল নির্ধারণ করা। কিন্তু তারা তা করেনি। বরং ফ্লাইট শিডিউল নির্ধারণে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে তথ্য দিয়ে সহায়তা করতে চাইলেও তারা তথ্য গ্রহণে অনুৎসাহী ছিল।

হাবের মহাসচিব বলেন, মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত হজ প্যাকেজে নির্ধারিত বিমান ভাড়ার থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া হয়েছে। ৩ হাজার টাকা ভাড়া বাড়ানো হজযাত্রী সংকটের অন্যতম কারণ। যদিও পরে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপে এ সমস্যার সমাধান করা হয়।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে হাব মহাসচিব বলেন, ধর্ম মন্ত্রণালয় হজযাত্রীপ্রতি ৩০০ টাকা প্রশিক্ষণের জন্য গ্রহণ করে। এ বছর এ খাতে সবমিলিয়ে ৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা তারা নিয়েছে। কিন্তু বিনিময়ে কোনো প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়নি। এতে হজযাত্রীদের অধিকার ক্ষুণ্ন হয়েছে। বিশাল অংকের টাকাও গচ্ছা গেছে।

অভিযুক্ত হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা :
হজ ব্যবস্থাপনায় যেসব এজেন্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠবে তা প্রমাণ হলে অভিযুক্ত এজেন্সির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুন।

রোববার আশকোনার হজ অফিসে তিনি বলেন, প্রয়োজনে এজেন্সিগুলোর লাইসেন্স বাতিল করা হবে। প্রতারণা কমাতে সংসদীয় কমিটিতে হজ এজেন্সির সংখ্যা কমানোর সুপারিশ করা হবে। হজ নীতিমালার আমূল পরিবর্তন করার কথাও জানান তিনি।

বজলুল হক হারুন বলেন, হজযাত্রীদের সঙ্গে কিছু এজেন্সি ও মধ্যস্বত্ত্বভোগীর প্রতারণার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমরা সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে জিডি করেছি। পরবর্তীতে এটি মামলায় রূপ নেবে। আগামীতে ই-হজ ব্যবস্থাপনা ঢেলে সাজানো হবে। যাতে মধ্যস্বত্ত্বভোগীরা ঢুকতে না পারে।

তিনি আরো বলেন, সরকারি কোটার হজযাত্রীদের কোনো অভিযোগ নেই। অথচ এজেন্সির অপপ্রচারের কারণে সরকারি কোটায় হজযাত্রীর সংখ্যা বেশি হয় না। আগামীতে সরকারি কোটায় হজযাত্রী বাড়াতে ব্যাপক প্রচারণা চালানোর উদ্যোগ নেওয়া হবে।

বজলুল হক হারুন বলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে এ দেশের ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের কারণে শেষ মুহুর্তে বিমানের আটটি অতিরিক্ত ফাইটের অনুমতি দিয়েছে। এতে হজযাত্রী পরিবহণ নিয়ে আর কোনো সংকট নেই। যারাই ভিসা সংগ্রহ করেছেন তাদের সবাইকে হজে নিয়ে যাওয়া হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন